হোস্টেল পরিচিতি, খরচাপাতি ও নিয়মনীতি

রংধনু মহিলা হোস্টেল
ছাত্রী ও কর্মজীবি নারীদের বাসস্থানের জন্য ধানমন্ডিতে রংধনু মহিলা হোস্টেলের যাত্রা। এই হোস্টেলের মোট পাঁচটি শাখা রয়েছে। প্রত্যেক শাখাই ৪ তলা বা ৫ তলা ভবন সমৃদ্ধ।
অবস্থান ও ঠিকানা : ধানমন্ডি ১৯ নম্বর রোডের স্টার কাবাবের পিছনে দক্ষিন দিকের গলিতে ১০০ গজ এগিয়ে  হাতের বাম পাশে রংধনু মহিলা হোস্টেল অবস্থিত। এই হোস্টেলের ঠিকানা বাড়ি-২১৪, রোড-১৯ (পুরাতন), ধানমন্ডি, মধুবাজার, ঢাকা। যোগাযোগের মোবাইল নম্বর ০১৭৩৯-৬১০৫৫৯।
ভবন : হোস্টেল ভবন ৫ তলা। এখানে ৩ বেড এবং ৪ বেডেরই রুম রয়েছে। ৪ রুমের বেডের সাথে ১টি করে টয়লেট এবং ৩ বেডের রুমে কমন টয়লেট রয়েছে।  এছাড়া বারান্দাও রয়েছে। এই হোস্টেলে কোন ডাইনিং রুম এবং নামাজের ঘর নেই।
থাকা ও খাওয়ার খরচ : এখানে চার বেডের রুমে বেডপ্রতি মাসিক থাকা খাওয়ার খরচ ৪,০০০ টাকা এবং ৩ বেডের খরচ থাকলে ৪,৫০০ টাকা দিতে হয়। এখানে সিট বুকিং এর জন্য ভাড়া নেওয়ার এক মাস পূর্বে যোগাযোগ করতে হয়। সিট বুকিং এর সময় অফেরৎযোগ্য ৪,০০০ টাকা অগ্রীম প্রদান করতে হয়। বুকিং এর দিন থেকে ভাড়া ধার্য করা হয়ে থাকে। সিট বাতিলের জন্য ১ মাস আগে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হয়। অন্যথায় সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ করতে হয়। প্রত্যেক মাসের ১ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে ভাড়া পরিশোধ করতে হয়। কম্পিউটার ব্যবহারে প্রত্যেক মাসে ২০০ টাকা হারে চার্জ প্রদান করতে হয়। টিভি, পত্রিকা, বুয়া ও সিকিউরিটির জন্য আলাদা কোন প্রকার চার্জ দিতে হয় না। বোর্ডারের গেস্টের জন্য প্রতিদিন ১৫০ টাকা করে অতিরিক্ত চার্জ প্রদান করতে হয়।
খাবার মেনু : রংধনু মহিলা হোস্টেলে চার বেলা খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। চার বেলার মেনু নিম্নরুপ-

  • সকাল – ভাত, ভাজি, রুটি, পরোটা, চা।
  • দুপুর – ভাত, মাছ, সবজি, মুরগীর মাংস।
  • বিকাল – সিঙ্গারা, সমুচা।
  • রাত – ভাত, মাছ, সবজি, ডাল।

সময়সূচী : বোর্ডারদের চলাচলের জন্য হোস্টেলের গেইট সকাল ৬ টা থেকে শীতকালে রাত ৮ টা এবং গ্রীষ্মকালে রাত ৯ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।
বিবিধ : এখানে কোন কোন লকার নেই। টাকা, গহণা, মোবাইল সহ মূল্যবান জিনিস নিজ দায়িত্বে রাখতে হয়। হোস্টেল কর্তৃপক্ষ ছাত্রীদের খাট, জাজিম, চেয়ার, টেবিল ও জমাকাপড় রাখার জন্য একটি শেলফ সরবরাহ করে থাকে।

তরুলতা ছাত্রী নিবাস

তরুলতা ছাত্রী নিবাস ২০১১ সালের মে থেকে যাত্রা শরু করে। ব্যক্তি মালিকানায় পরিচালিত এই ছাত্রী নিবাসে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং  চাকুরীজীবি মেয়েরা থাকতে পারে।
অবস্থান (লোকেশান) ও ঠিকানা : সংসদ ভবন থেকে পূর্ব দিকে ১৩ নং সেবা বুথ (মনিপুরী পাড়া কল্যাণ সমিতি) এর পাশে তরুলতা ছাত্রী নিবাস অবস্থিত। এটির হোল্ডিং ঠিকানা ৮৩/৪, ৮৩/ ৫, ১৩ মনিপুরীপাড়া, তেজগাঁও, ঢাকা – ১২১৫। ফোন নম্বর (কেয়ারটেকার) ০১৯১৬-২৬০৫২৯।
কক্ষ ব্যবস্থাপনা, থাকা ও খাবার ফি : এই হোষ্টেলে প্রত্যেক রুমে ৩ থেকে ৪ জন থাকতে পারে। এখানে কোন হল রুম নাই। এখানে থাকা ও খাওয়া বাবদ প্রতি মাসে খরচ হয় জনপ্রতি ৫,০০০ টাকা এবং শুধু থাকা বাবদ ৩,০০০ টাকা। এখানে পত্রিকা, বুয়া, সিকিউরিটি বাবদ আলাদা কোন টাকা দিতে হয় না। ভর্তির সময় ৮০৫০ টাকা পরিশোধ করতে হয়। এর মধ্যে ভর্তি ফর্ম ৫০ টাকা, ভর্তি ফি ৩০০০ টাকা এবং প্রথম মাসের খরচ (থাকা ও খাওয়া)     ৫০০০ টাকা।
সিট প্রাপ্তিতে যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন : সিট প্রাপ্তির সময় শিক্ষার্থী (ছাত্রী) এর জন্য ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, অভিভাবকের ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং শিক্ষার্থী (ছাত্রী) ও অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
তবে কর্মজীবী নারীদের ক্ষেত্রে নিজের ও অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অফিস কর্তৃক চাকুরীর প্রমাণপত্র এবং নিজের ২ কপি ও অভিভাবকের ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি। ভর্তির সময় ভাই, বোন, বাবা, মা বা  স্বামীকে অবশ্যই উপস্থিত থাকেত হয়।
খাবার মেনু : এই হোষ্টেলে সকালের মেনুতে ভাত-আলুভর্তা-ডাল-খিচুরী-সবজি, দুপুরে দুপুরে  ভাত-মাছ-মাংস-শাক-ডাল এবং রাতে  ভাত-মাছ-ডিম-শাক-ডাল সরবরাহ করা হয়ে থাকে। তবে মাঝে মাঝে বিশেষ আয়োজনও থাকে। কেউ চাইলে ব্যক্তিগতভাবেও রান্না করতে পারবে।
ভাড়া পরিশোধ পদ্ধতি ও অন্যান্য : প্রতি মাসের ১-৫ তারিখের মধ্যে ভাড়া পরিশোধ করতে হবে। কেহ যদি ১ মাসের জন্য বাড়ী চলে যায় তবে পুরো টাকাই পরিশোধ করতে হবে।  সিট বাতিলের জন্য কর্তৃপক্ষকে ১ মাস পূর্বে জানাতে হবে।
সঙ্গে যা আনতে হবে : হোষ্টেলে ওঠার সময় ছাত্রী/মহিলাদেরকে মশারী, লেপ, তোষক, থালা, বাটি সঙ্গে আনতে হয়। এছাড়া হোষ্টেল থেকে টেবিল, চেয়ার, খাটের ব্যবস্থা করা হয়। এর জন্য কোন প্রকার চার্জ দিতে হয় না।
সময় সূচী : এই হোষ্টেলে প্রবেশ ও বাইরে যাওয়ার জন্য সকাল ৭.০০ টা থেকে রাত ৮.০০ (ছাত্রীদের জন্য) এবং কর্মজীবীদের জন্য সর্বোচ্চ রাত ৯.০০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।
বিবিধ : টাকা, পয়সা, গহনা, মোবাইল নিজ দায়িত্বে রাখতে হয় অবশ্য এজন্য কোন লকারের ব্যবস্থা নেই। জিনিসপত্র হারিয়ে গেলে কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। এখানে টিভি, কম্পিউটার ব্যবহার করতে দেয়া হয় না।

আরো দেখুন

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.