যদি ফ্যাশন বিষয়ে পড়তে চান…

ফ্যাশন ডিজাইনিং বিষয়টি দেশে নতুন নয়। দেশি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বিদেশেও ফ্যাশন ডিজাইনারের বেশ চাহিদা আছে। এ বিষয়ে পড়াশোনা শেষে সফলতার সঙ্গে কাজ করছে- এমন শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কম নয়। চাইলে আপনিও হতে পারেন তাদেরই একজন।
বেছে নিন পছন্দের কোর্স
ফ্যাশনের ওপর স্নাতক প্রোগ্রাম চালু আছে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। চার বছর মেয়াদি ‘ফ্যাশন ডিজাইন অ্যান্ড টেকনোলজি’ কোর্সে অন্তর্ভূক্ত আছে ওভেন অ্যাপারেল, নিটওয়্যার, টেক্সটাইল ডিজাইন এবং সার্ফেস ডেকোরেশন।  এ ছাড়াও আছে ড্রয়িং, ডিজাইন, নন্দনতত্ত্ব, ফটোগ্রাফি, ইংরেজি, সমাজতত্ত্ব, হেরিটেজ অ্যান্ড কালচার, বিজনেস কমিউনিকেশন, ম্যানেজমেন্ট, মার্কেটিং, মার্চেন্ডাইজিং ইত্যাদি।
এছাড়াও এ বিষয়ে সার্টিফিকেট ও ডিপ্লোমা কোর্স চালু আছে। প্রোগ্রাম ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানভেদে বছরের বিভিন্ন সময় এ বিষয়ে ভর্তি করানো হয়।
চার বছরের ফ্যাশন ডিজাইন টেকনোলজি কোর্সে বিজ্ঞান, মানবিক, বাণিজ্য যেকোনো বিভাগের শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানভেদে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় পৃথকভাবে ন্যূনতম জিপিএ ২.০০ থেকে ৩.০০ পেতে হবে।
কোর্সভেদে খরচও ভিন্ন
বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজিতে (বিইউএফটি) বিএসসি ইন ফ্যাশন ডিজাইন অ্যান্ড টেকনোলজিতে টিউশন ফি ৫ লাখ ১৫ হাজার টাকা। একই কোর্স শান্ত মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজিতে করতে খরচ পড়বে ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৮০০ টাকা। চার বছরের এ প্রোগ্রামটিতে মোট সেমিস্টার সংখ্যা ৮। প্রতিটি সেমিস্টারের মেয়াদকাল ৬ মাস। ফ্যাশন ডিজাইনের ওপর মাস্টার্স কোর্সও চালু আছে। এতে খরচ ১ লাখ ৫৯ হাজার ৬০০ টাকা।
ভর্তির তথ্য যেখানে পাবেন
বিজিএমইএ ইনস্টিটিউট অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি (বিআইএফটি)
ওয়েব : www.bift.info
শান্ত মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি
ওয়েব : www.smuct.edu.bd
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফ্যাশন টেকনোলজি
ওয়েব: www.nift.edu.bd

  • শিক্ষাবিষয়ক দরকারি তথ্য তাৎক্ষণিক পেতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন : www.facebook.com/EducationBarta
  • Leave A Reply

    Your email address will not be published.

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.