জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কলেজ পরিবর্তন বা TC-এর নিয়ম

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কলেজ পরিবর্তন করতে গেলে, অর্থাৎ এক কলেজ থেকে আরেক কলেজে TC নিয়ে ভর্তি হতে চাইলে প্রথমে বর্তমান কলেজ থেকে ছাড়পত্র নিতে হবে। যেসব কারণে শিক্ষার্থী ছাড়পত্র নিতে পারবে : # বাবা/মার বদলি : বাবা/মা চাকরিজীবি হলে যদি বর্তমান জেলা থেকে অন্য কোনো জেলায় বদলি হয়, তাহলে ছাড়পত্র পাওয়া যাবে। হলে। উল্লেখ্য, বাবা/মা আইনগতভাবে কাউকে অভিভাবকত্ব প্রদান করলে সে অভিভাবক যদি চাকরিক্ষেত্রে বদলি হয়, তাহলেও ছাড়পত্র নেওয়া যাবে। # বাবা/মার মৃত্যু হলে : বাবা/মার মৃত্যু হলে স্থানীয় চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র/ডেথ সার্টিফিকটের সত্যায়িত ফটোকপি আবেদন ফরমের সাথে যুক্ত করতে হবে। বাবা/মার মৃত্যুর পর বর্তমানে অর্পিত অভিভাবকের সম্মতিপত্র এবং তার পেশা ও কর্মস্থল সংক্রান্ত কাগজপত্র এবং এনআইডির (জাতীয় পরিচয়পত্র) ফটোকপি জমা দিতে হবে। # সংশ্লিষ্ট কলেজের শিক্ষাকার্যক্রম বিষয়ের অধিভুক্তি স্থগিত/বাতিল হলে : এমনটি হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ পরিদর্শন শাখা কর্তৃক অধিভুক্তি বাতিলের পত্র সংযুক্ত করতে হবে। # শিক্ষার্থী যদি প্রতিবন্ধি হয় : এক্ষেত্রে সমাজকল্যাণ দপ্তরের সনদ জমা দিতে হবে। # মেয়ে শিক্ষার্থীর বিয়ে হলে : মেয়ে শিক্ষার্থীর বিয়ে স্বামীর জেলা/কর্মস্থল/অবস্থানে স্থানান্তর হয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য কলেজ পরিবর্তন করতে চাইলে নিকাহনামা ও স্বামীর কর্মস্থল/বসবাসের ঠিকানার প্রামান্য কাগজ এবং স্বামীর জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি জমা দিতে হবে। # স্থায়ী ঠিকানার কাছের কলেজে পড়তে চাইলে : শিক্ষার্থীর অভিভাবকের স্থায়ী ঠিকানার কাছের কোনো কলেজে পড়তে চাইলে এ ক্ষেত্রে ছাড়পত্র নেওয়া যাবে। এ ক্ষেত্রে আবেদনপত্রের সঙ্গে শিক্ষার্থীর নিজের/বাবা/মার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সংযুক্ত করা লাগবে। যেসব ক্ষেত্রে ছাড়পত্র নেওয়া যাবে না : # শিক্ষার্থী যে জেলা কিংবা বিভাগীয় শহরের কলেজে বর্তমানে পড়াশোনা করছে বা ভর্তি হয়েছে, একই জেলা কিংবা বিভাগীয় শহরের আরেকটি কলেজে ভর্তির জন্য ছাড়পত্র নিতে পারবে না। তবে, বিশেষকারণে মেয়ে শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে এই শর্ত শিথিলযোগ্য। – ১ম বর্ষে থাকা অবস্থায় ছাড়পত্রের আবেদন করা যাবে না। – অনার্স ৩য় ও ৪র্থ বর্ষে বিশেষ কারণ ছাড়া ছাড়পত্র নেওয়া যাবে না। – কোর্সের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফরম পূরণ শুরু হলে ছাড়পত্র ইস্যু করা হয় না। – তথ্য কিংবা কাগজপত্রের কোনো তথ্য ভুল বা জালিয়াতির প্রমাণ পেলে শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করা হয়। – প্রতি বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল প্রকাশের ৪৫ দিন পর আর কলেজ পরিবর্তন আবেদনের সুযোগ থাকবে না। কলেজ পরিবর্তন আবেদনের উপযুক্ত সময় : – প্রতি বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর থেকে ৪৫ দিনের মধ্যে। – ২য়, ৩য়/৪র্থ বর্ষে আবেদন করা যাবে। কলেজ পরিবর্তনের আবেদন করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত ফরমে। ফরম ডাউনলোড করা যাবে এই লিংক থেকে- https://educationbarta.com/wp-content/uploads/2018/08/NU-bd-TC-Order-form-16.6.14.pdf অথবা, http://rc.edu.bd/wp-content/uploads/2014/05/T.C-Order-form-16.6.14.pdf কলেজ পরিবর্তনের আবেদনের সঙ্গে যা যা লাগবে : – আবেদন ফরমের সঙ্গে প্রবেশ পত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড এবং ফলাফলের সত্যায়িত কপি সংযুক্ত করতে হবে। – আবেদনের যাবতীয় তথ্যের সঙ্গে শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বর উল্লেখ করতে হবে। – প্রার্থীর প্রাথমিক আবেদন যাচাই করে ১ সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বরে এমএমএস করে আবেদন বিবেচনাযোগ্য কিনা তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

  • শিক্ষাবিষয়ক দরকারি তথ্য তাৎক্ষণিক পেতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন : www.facebook.com/EducationBarta
  • 1 Comment
    1. Md Shohel says

      ami to sob joma disi tarpor o oi khane bord bolse attach problem …

    Leave A Reply

    Your email address will not be published.

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.